মোবাইল ফোনের উপকারিতা ও অপকারিতা

প্রিয় পাঠক আজকে আমরা মোবাইল ফোনের বিভিন্ন ধরনের উপকারিতা এবং মোবাইল ফোনের ভুল ব্যবহার কিভাবে আমাদের জীবনে নানান ধরনের ক্ষতি করে থাকে সে বিষয়ে জানবো। আপনার মনে যদি এ প্রশ্ন এসে থাকে যে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে তো অনেক উপকার হয়ে থাকে তাহলে আবার কি কি ক্ষতি হতে পারে মোবাইলের মাধ্যমে।

তাহলে আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আপনি মোবাইল ফোনের উপকার এবং ক্ষতিকর দিক সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানতে পারবেন। আশা করি পুরো আর্টিকেলটি ভালোভাবে পড়বেন এবং আমাদের সাথে থাকবেন যাতে করে অনেক অজানা তথ্য সম্পর্কে জানতে পারেন।

পোস্টের সূচিপত্রঃ মোবাইল ফোনের উপকারিতা ও অপকারিতা 

ভূমিকা: মোবাইল ফোনের উপকারিতা ও অপকারিতা

আধুনিকে প্রযুক্তির যুগে মোবাইল ফোন এবং ইন্টারনেট আমাদের নিত্য প্রতিদিনের সঙ্গী হয়ে উঠেছে। আমরা দৈনন্দিন বিভিন্ন কাজে এই মোবাইল ফোন এবং ইন্টারনেট ব্যবহার করে থাকি এবং এই ইন্টারনেটের মাধ্যমে আমাদের দৈনন্দিন জীবনে বিভিন্ন ধরনের কাজ করে থাকি।

এ মোবাইল ফোনের যেমন বিভিন্ন ধরনের অনেক উপকারের দিক রয়েছে তেমনি এই মোবাইল ফোনে বিভিন্ন ধরনের ক্ষতিকর দিক রয়েছে। এই মোবাইল ফোন নামক যন্ত্রটির মাধ্যমে আমরা প্রতিনিয়ত সারা বিশ্বের যে কোন মানুষের সাথে এবং যে কোন প্রান্তের মানুষের সাথে যোগাযোগ করে থাকি

এই গত কয়েক বছরের মধ্যে এই মোবাইল ফোন নামক যন্ত্রটি আমাদের নিত্যদিনের একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ হয়ে উঠেছে এর মোবাইল ফোন ছাড়া আমরা আমাদের একটি মুহূর্ত কল্পনা করতে পারি না।

মোবাইল ফোনের উপকারিতা কি

মোবাইল ফোন আমরা যোগাযোগের জন্য সবথেকে বেশি ব্যবহার করে থাকি। বিশ্বের যেকোনো প্রান্ত থেকে আমরা মোবাইল ফোনের মাধ্যমে আমাদের পরিবার বন্ধুবান্ধব এবং প্রিয়জনের সাথে যোগাযোগ করতে পারি।মোবাইল ফোন এখন আমাদের দৈনন্দিন জীবনে নিত্য প্রয়োজনীয় সঙ্গী হয়ে উঠেছে।

আমরা সারাদিনে বিভিন্ন ধরনের কাজ মোবাইল ফোনের মাধ্যমে করে থাকি। আমরা মোবাইল ফোনের মাধ্যমে অনলাইনে বিভিন্ন ধরনের পার্ট টাইম জব করে থাকি। এছাড়া মোবাইলফোন আমাদের পড়াশোনার কাজে বিভিন্নভাবে উপকার করে থাকে।

অফিসের বিভিন্ন ধরনের কাজের মোবাইল ফোন আমাদের বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করে থাকে। অফিসের বিভিন্ন ধরনের কাজে অফিস কর্মীদের সঙ্গে যোগাযোগ করার জন্য মোবাইল খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

ছাত্র জীবনে মোবাইল ফোনের উপকারিতা

আমাদের ছাত্র জীবনে মোবাইল ফোন অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে। মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ছাত্র-ছাত্রীরা অনলাইনে তাদের বিভিন্ন ধরনের ক্লাস করে থাকে। COVID-19 এর সময় যখন ছাত্রছাত্রীরা তাদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যেতে পারছিল না তখন তাদের একমাত্র ভরসা ছিল মোবাইল ফোন । তখন মোবাইল ফোনের মাধ্যমে তারা তাদের ক্লাসগুলো নিয়মিত চালিয়ে যাচ্ছিল।

মোবাইল ফোন ব্যবহার করে ইন্টারনেটের মাধ্যমে ছাত্র-ছাত্রীরা প্রচুর জ্ঞান অর্জন করতে পারে এবং বিভিন্ন ধরনের তথ্য ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহ করতে পারে। এই মোবাইল ফোনের মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা প্লে স্টোর থেকে বিভিন্ন ধরনের ই লার্নিং অ্যাপস ডাউনলোড করে বিভিন্নভাবে জ্ঞান অর্জন করতে পারে।

বর্তমান সময়ে মানবজীবনে মোবাইল ফোনের উপকারিতা ও অপকারিতা

আধুনিক এ প্রযুক্তির যুগে অন্যতম একটি বড় আবিষ্কার হচ্ছে এ মোবাইল ফোন এবং যোগাযোগের অন্যতম হাতিয়ার হচ্ছে মোবাইল ফোন। এ মোবাইল ফোনের মাধ্যমে দ্রুত যে কোন মানুষের সাথে যোগাযোগ করা যায় এবং ইন্টারনেট ব্যবহার করে বিভিন্ন ধরনের কাজ সম্পন্ন করা যায়।

আবিষ্কারের শুরুতে এ মোবাইল ফোনগুলো অনেক বড় হয়ে থাকলেও আধুনিককালে এগুলো স্মার্টফোনে পরিণত হয়ে মানুষের জন্য সহজলভ্য হয়ে গিয়েছে। এই মোবাইল ফোন ব্যবহার করে ছোট ছোট শিশু বাচ্চারা বিভিন্ন ধরনের জ্ঞান অর্জন করতে পারে এবং ইন্টারনেট থেকে বিভিন্ন কিছু শিখতে পারে।

প্রাচীন যুগে কোন মানুষের কাছে কোন সংবাদ পাঠাতে হলে আমাদেরকে চিঠির ব্যবহার করতে হতো। কিন্তু এখন এই মোবাইল ফোন ব্যবহার করে আমরা বিভিন্ন ধরনের গুরুত্বপূর্ণ এসএমএস এবং বিভিন্ন ধরনের সংবাদ এবং স্বল্প খরচে অন্যদের কাছে পৌঁছে দিতে পারি।

মোবাইল ফোন আমাদের কি কি ক্ষতি করে

মোবাইল ফোন যেমন আমাদের বিভিন্ন ধরনের উপকার করে থাকি তেমনি এই মোবাইল ফোনের ভুল ব্যবহারের মাধ্যমে আমাদের বিভিন্ন ধরনের ক্ষতির দিকে নিয়ে যায়। মোবাইল ফোন ব্যবহারের মাধ্যমে আমাদের কাজের মনোযোগ নষ্ট হতে পারে এবং বিভিন্ন ধরনের সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে এবং সবচেয়ে বড় ভয়াবহ ক্ষতি হচ্ছে গাড়ি চালানো অবস্থায় মোবাইল ফোন ব্যবহার করা এর মাধ্যমে অনেক বড় দুর্ঘটনা হতে পারে।

এই মোবাইল ফোন সহ যে কোন ইলেকট্রিক ডিভাইস বেশিক্ষণ ব্যবহারের ফলে আমাদের চোখে বিভিন্ন ধরনের সমস্যা হতে পারে। অতিরিক্ত মোবাইল ফোন ব্যবহারের মাধ্যমে আমাদের বিভিন্ন ধরনের সমস্যা হয় এর মধ্যে একটি হচ্ছে মাথাব্যথা। বেশিক্ষণ ধরে মোবাইল ফোন ব্যবহারের মাধ্যমে এবং বেশিক্ষণ ধরে মোবাইলের দিকে তাকিয়ে থাকলে আমাদের মাথার মধ্যে বিভিন্ন ধরনের সমস্যা হতে পারে।

এছাড়া ছোট বাচ্চারা বিভিন্ন ধরনের মোবাইল গেমস খেলার মাধ্যমে পড়ালেখার প্রতি তাদের মনোযোগ নষ্ট করে ফেলছে যা তাদের ভবিষ্যতের জন্য অনেক বড় ক্ষতি করতে পারে। অনেকক্ষণ যাবত এই মোবাইল ফোনের ব্যবহারের মাধ্যমে স্মৃতিশক্তি এবং হার্টের বিভিন্ন ধরনের সমস্যা দেখা দিতে পারে বলে মনে করেছেন বিশেষজ্ঞরা।

মোবাইল ফোনের সুবিধা ও অসুবিধা

উন্নতি প্রযুক্তি হওয়ার আগে মানুষকে বিভিন্ন ধরনের কিপ্যাড মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে হতো কিন্তু এখন সেটা খুব বিরল হয়ে গেছে। এখন স্মার্টফোন আসার মাধ্যমে মানুষ বিভিন্নভাবে সহজে মোবাইল ফোন চালাতে পারে। স্মার্টফোনের যেমন বিভিন্ন ধরনের উপকারের দিক রয়েছে তেমনি বিভিন্ন ধরনের ক্ষতির দিক‌ও রয়েছে।

তবে এই মোবাইল ফোনের সঠিক ব্যবহার মানুষকে ক্ষতির দিক থেকে সরিয়ে নিয়ে উপকারের দিকে নিয়ে যেতে পারে। এ মোবাইল ফোন ব্যবহারের মাধ্যমে মানুষের অনেক কঠিন কাজগুলো এখন অনেক সহজ হয়ে গিয়েছে এবং বিভিন্ন ধরনের কাজ অনেক সহজলভ্য হয়ে গিয়েছে। তবে আমরা চেষ্টা করব মোবাইল ফোনের বিভিন্ন ধরনের ক্ষতিকর দিকগুলো দূরে রেখে উপকারের দিকগুলো বেছে নিতে যাতে করে আমাদের কোন ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হতে না হয়।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url