টমেটো খাওয়ার উপকারিতা ও অপকারিতা

কমবেশি প্রত্যেকটি মানুষই টমেটো খেতে পছন্দ করেন। টমেটোকে আমরা প্রতিনিয়তই সবজি হিসেবে ব্যবহার করে থাকি। তবে আমরা কি জানি টমেটো খাওয়ার উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে। যদি আপনি টমেটো খাওয়ার উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে না জেনে থাকেন তাহলে আজকের এই আর্টিকেলটি আপনার জন্য। 
টমেটো খাওয়ার উপকারিতা ও অপকারিতা
এই আর্টিকেলটি পড়ার মাধ্যমে আপনারা জানতে পারবেন যে টমেটো খেলে কি কি উপকার হয় এবং অতিরিক্ত টমেটো খাবার ফলে কি অপকারিতা হতে পারে। চলুন জেনে নিন টমেটো খাওয়ার উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে।

পোস্টের সূচিপত্রঃ টমেটো খাওয়ার উপকারিতা ও অপকারিতা

ভূমিকা

টমেটো হচ্ছে এমন এক ধরনের সবজি যা কম বেশি প্রত্যেকটি মানুষই পছন্দ করে থাকেন। যদিও এই টমেটো একটি শীতকালীন সবজি কিন্তু তারপরও বর্তমানে এখন প্রায় সারা বছরই টমেটো পাওয়া যায়। টমেটোর গুণাগুণ এবং পুষ্টিগুণ অনেক বেশি। টমেটো আমরা বিভিন্ন উপায়ে খেয়ে থাকি। কিন্তু আমরা অনেকেই টমেটোর উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে জানিনা। তাই আজকে আমরা এই আর্টিকেলের মাধ্যমে টমেটোর উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব।

টমেটো কি ফল না সবজি

কমবেশি অনেকের মাথায় একটি প্রশ্ন এসে থাকে যে টমেটো কি আসলে একটি ফল নাকি এটি এক ধরনের সবজি। বিশ্বের অনেক মানুষের কাছেই এই টমেটো সবজি হিসেবে পরিচিত। কারণ তারা টমেটো সবজি হিসেবে বিভিন্ন ভাবে তরকারি রান্না করে থাকে। কিন্তু বিজ্ঞানীদের মতে এটি একটি ফল।

টমেটোর পুষ্টিগুণ

টমেটো হচ্ছে অত্যান্ত পুষ্টি সমৃদ্ধ একটি সবজি। আমরা অনেকেই সালাদ বানিয়ে বা সবজি হিসেবে রান্না করে টমেটো খেতে পছন্দ করি। বিশেষ করে এটি শীতকালীন সময়ে বেশি পাওয়া যায়। তাই এটিকে শীতকালীন সবজি বলা হয়। কিন্তু বর্তমানে আমাদের দেশে প্রায় সারা বছরই টমেটো পাওয়া যায়। টমেটোতে বিভিন্ন ধরনের পুষ্টি উপাদান রয়েছে যা একটি মানুষের শরীরের জন্য খুবই উপকারী। টমেটো খেলে আমাদের শরীরে বিভিন্ন ধরনের উপকার হয়ে থাকে। 

আসুন জেনে নিন টমেটোর পুষ্টিগুণ সম্পর্কে। ১০০ গ্রাম টমেটোর মধ্যে পাওয়া যায় ক্যারোটিনের পরিমান প্রায় ৩৫১ মাইক্রো গ্রাম। এছাড়া টমেটোতে রয়েছে ভিটামিন এ, ভিটামিন বি, ভিটামিন সি ও ভিটামিন কে। ১০০ গ্রাম টমেটোর মধ্যে পাওয়া যায় ৩.৬ গ্রাম শর্করা, ০.৮ মিলিগ্রাম আঁশ, ০.৯ গ্রাম আমিষ, ০.২ মিলিগ্রাম চর্বি, ২০ মিলিগ্রাম ফসফরাস, ২৮ মিলিগ্রাম এর মতন ভিটামিন সি, ২০ কিলো ক্যালরি শক্তি, এবং ০.৬৪ মিলিগ্রাম লৌহ।

কাঁচা টমেটোর উপকারিতা

আমরা প্রায় প্রতিনিয়তই টমেটো সবজি এবং সালাদ হিসাবে ব্যবহার করে থাকি। এবং এই টমেটো খাওয়ার ফলে বিভিন্ন ধরনের উপকার হয়ে থাকে। কাঁচা টমেটো খাওয়ার ফলে যে সব উপকারিতা হয়ে থাকে তা নিচে তুলে ধরা হলো।
  • কাঁচা টমেটো খেলে আমাদের চোখ ভালো থাকে। কারণ কাঁচা টমেটোতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে বিটা ক্যারোটিন। এই উপাদানটি আমাদের চোখের দৃষ্টিশক্তি বাড়াতে খুবই ভালো কাজ করে। তাই আমাদের প্রতিদিন একটি করে কাঁচা টমেটো খাওয়া উচিত।
  • আমরা প্রতিনিয়ত বাহিরে বিভিন্ন ধরনের তৈলাক্ত বা তেলে ভাজা জিনিস খেয়ে থাকি। এসব জিনিস খাওয়ার ফলে আমাদের শরীরে রক্তে খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা বেড়ে যেতে পারে। এবং যার ফলে আমাদের উচ্চ রক্তচাপের সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে। কিন্তু কাঁচা টমেটোতে থাকা পটাশিয়াম আমাদের উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করতে খুবই ভালো কাজ করে।
  • তাছাড়া কাঁচা টমেটোতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি জাতীয় উপাদান। যা আমাদের শরীরের হাড়, দাঁত এবং ত্বকের জন্য খুবই ভালো কাজ করে।
  • তাছাড়া কাঁচা টমেটোতে এক ধরনের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে যা আমাদের ত্বকের সৌন্দর্য এবং উজ্জ্বলতা বাড়াতে খুবই ভালো কাজ করে। তাই আমরা প্রতিনিয়ত একটি করে কাঁচা টমেটো খাওয়ার চেষ্টা করব।

প্রতিদিন একটি করে টমেটো খেলে কি হয়

টমেটো হচ্ছে পুষ্টিগুণে ভরপুর এক ধরনের সবজি। টমেটোকে আমরা কাঁচা অবস্থায় অথবা রান্না করে, জুস বানিয়ে, সস বানিয়ে, চাটনি বানিয়ে খেতে পারি। প্রতিদিন একটি করে টমেটো খেলে আমাদের বিভিন্ন ধরনের উপকার হতে পারে। প্রতিদিন টমেটো খাওয়ার ফলে যে উপকার গুলো হবে সে সম্পর্কে নিচে আলোচনা করা হলো।
  • টমেটোতে ভিটামিন এ এর পরিমাণ প্রচুর পরিমাণে থাকায় এটি আমাদের শরীরে বিভিন্ন ধরনের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি করতে সহযোগিতা করে।
  • তাছাড়া টমেটোতে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট আমাদের ত্বকের উজ্জ্বলতা এবং সৌন্দর্য বাড়াতে সহযোগিতা করে।
  • তাছাড়া প্রত্যেক দিন টমেটো খাওয়ার ফলে উচ্চ রক্তচাপ জাতীয় সমস্যা থাকলে সেটি নিয়ন্ত্রণ করা যেতে পারে।
  • আমাদের চোখের দৃষ্টিশক্তি বাড়াতে ভিটামিন এ জাতীয় খাবার খুবই ভালো কাজ করে। টমেটোতে ভিটামিন এ থাকায় এটি খাবার ফলে আমাদের চোখের দৃষ্টিশক্তি ভালো থাকে এবং চোখ সুস্থ থাকে।
  • প্রতিদিন টমেটো খাওয়ার ফলে ক্যান্সার হওয়ার আশঙ্কা অনেকাংশই কমে যায়। কারণ টমেটোতে থাকা লাইকোপেন ক্যান্সার প্রতিরোধে সহযোগিতা করে।
  • টমেটোতে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম থাকার কারণে এটি খাবার ফলে আমাদের দাঁত এবং হাড় শক্ত ও মজবুত থাকে।
  • এছাড়া টমেটো খাওয়ার ফলে প্রোস্টেট ক্যান্সার নামক রোগ প্রতিরোধ করতে সহযোগিতা করে।

টমেটো খাওয়ার অপকারিতা

কমবেশি প্রায় প্রত্যেকটি জিনিসেরই উপকারিতা এবং অপকারিতা রয়েছে। তেমনি টমেটো খাওয়ার উপকারিতা ও অপকারিতা রয়েছে। টমেটো খাওয়া আমাদের শরীরের জন্য অত্যন্ত ভালো। কিন্তু একটি কথা আছে যে কোন কিছুই বেশি ভালো নয়। তেমনি বেশি পরিমাণ টমেটো খাওয়ার ফলে বিভিন্ন ধরনের সমস্যা তৈরি হতে পারে। চলুন জেনে নিন অতিরিক্ত টমেটো খাওয়ার ফলে কি কি সমস্যা হতে পারে।
  • কারো যদি হৃদরোগের সমস্যা থাকে তাহলে টমেটো খাওয়ার আগে ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া উচিত। কারণ টমেটো টমেটো হচ্ছে পটাশিয়াম জাতীয় খাবার। তাই হৃদরোগের সমস্যা থাকলে রক্তে পটাশিয়ামের মাত্রা বেড়ে যেতে পারে।
  • কারো যদি কিডনির সমস্যা হয়ে থাকে তাহলে টমেটো খাবার আগে ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে। কারণ কিডনিতে সমস্যা থাকার কারণে টমেটো খাওয়ার ফলে বিভিন্ন ধরনের ঝুঁকিতে পড়তে পারে।
  • আবার অতিরিক্ত টমেটো খাবার ফলে গ্যাস্টিকের সমস্যা দেখা দিতে পারে।
  • যদিও টমেটো এলার্জি জাতীয় খাবার না তারপরেও টমেটো খাবার ফলে শ্বাস-প্রশ্বাসের মধ্যে এলার্জি হতে পারে। তাই টমেটো খাবার পূর্বে ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া উচিত।

শেষ কথা

আমরা প্রতিনিয়ত বিভিন্নভাবে টমেটো খেতে পছন্দ করি। শীতকালীন সময়ে আসলে প্রতিদিন দুপুরে খাবারের সময় যেন টমেটোর সালাদ আমাদের চাই। তাই টমেটো যেমন আমাদের অত্যন্ত পছন্দনীয়। তেমনি এটির গুনাগুন এবং টমেটো খাওয়ার উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে আমাদের জানা উচিত। উপরের আলোচনাগুলোর মাধ্যমে আমরা টমেটো খাওয়ার উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে জানতে পারি।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url