দাড়ি লম্বা এবং ঘন করার উপায়

দাড়ি সুন্দর, ঘন এবং লম্বা করতে কে বা না চায়। কারণ লম্বা এবং ঘন দাড়ি একজন মানুষের পরিপূর্ণ সৌন্দর্যকে ফুটিয়ে তুলে। লম্বা এবং ঘন দাড়ি একজন আকর্ষণীয় পুরুষের অন্যতম একটি চিহ্ন। তাই এখনকার তরুণরা দাড়ি ঘন এবং লম্বা করার জন্য গুগল এ বিভিন্ন ধরনের ট্রিকস খুঁজে থাকেন। কিন্তু তারা অনেক খোঁজাখুঁজি করার পরেও দাড়ি লম্বা এবং ঘন করার উপায় খুঁজে পায় না। 
দাড়ি লম্বা এবং ঘন করার উপায়
তাই আজকে আমরা আপনাদের কথা চিন্তা করে দাড়ি লম্বা এবং ঘন করার উপায় সম্পর্কে আমাদেরে আর্টিকেলে বিস্তারিত আলোচনা করব। আজকের এই আর্টিকেলটি করে আপনি যে বিষয়ে জানতে পারবেন সেটি হল দাড়ি লম্বা এবং ঘন করার উপায়। চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক সেই সকল গুরুত্বপূর্ণ উপায় সম্পর্কে যেগুলোর মাধ্যমে আপনি আপনার দাড়িকে করতে পারবেন লম্বা এবং ঘন।

পোস্টের সূচিপত্রঃ দাড়ি লম্বা এবং ঘন করার উপায়

ভূমিকা

প্রত্যেকটি পুরুষই চায় তার দাড়িকে লম্বা এবং ঘন করতে। কারণ লম্বা দাড়ি এবং ঘন দাড়ি একজন পুরুষের পরিপূর্ণ সৌন্দর্যকে ফুটিয়ে তুলে। অনেক জায়গায় আবার বলা হয়ে থাকে যে দাড়ি হচ্ছে পুরুষত্বের চিহ্ন। কিশোর বয়স থেকেই ছেলেদের মনে দাড়ি নিয়ে বিভিন্ন ধরনের চিন্তাভাবনা শুরু হয়ে যায়। যে কিভাবে তার দাড়ি গজাবে, কিভাবে দাড়িকে লম্বা এবং ঘন করবে এই সকল বিষয় নিয়ে চিন্তাভাবনা লেগেই থাকে। 
লম্বা এবং ঘন দাড়ি মেয়েদেরকে অনেকটা আকৃষ্ট করে। আবার কখনো কখনো দেখা যায় যে যাদের বয়স বাড়ার সাথে সাথে দাড়ি উঠে না তারা তাদের বন্ধুদের সামনে যেতেও লজ্জা পাই। এই সকল কারণে ছেলেরা তাদের বয়স বাড়ার সাথে সাথে দাড়ি গজানো নিয়ে উঠে পড়ে লেগে যায়। তবে দাড়ি না ওঠারও বিভিন্ন ধরনের কারণ রয়েছে। আবার দাড়ি গজানোরও বিভিন্ন ধরনের উপায় রয়েছে। চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক সে সকল বিষয় সম্পর্কে।

দাড়ি না গজানোর কারণ

এখন তরুণদের মধ্যে একটি প্রশ্ন দেখা যায় যে বয়স তো অনেক হলো কিন্তু দাড়ি কেন গজাচ্ছে না। কিন্তু এই দাড়ি না গজানোর পিছনে বিভিন্ন ধরনের কারণ রয়েছে। চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক সেই সকল কারণ সম্পর্কে। মানব শরীরে এন্ড্রোজেন নামক একপ্রকার হরমোন রয়েছে। এই হরমোনটির কাজ হল মানব শরীরের বিভিন্ন স্থানে যেমন মুখে দাড়ি গজানো, মাথায় চুল গজানো, বুকের লোম গজানো ইত্যাদি কাজ করে থাকে। এই এন্ড্রোজেন হরমোনটি যখন ক্ষরণ হয় না তখন মুখে দাড়ি গজায় না। 
অনেক সময় দেখা যায় যে অনেক পুরুষের বয়স বাড়ার সাথে সাথেই মুখ ভর্তি দাড়ি গজানো শুরু হয়। কিন্তু যখন অনেক বয়স পার হওয়ার পরেও মুখে কোন দাড়ি গজায় না তখন আপনার উচিত হবে একজন হরমোন বিশেষজ্ঞের কাছে থেকে পরামর্শ নেওয়া। এছাড়া আমরা আজকে দাড়ি গজানোর এবং দাড়ি লম্বা ও ঘন করার কিছু উপায় নিয়ে আলোচনা করব। যদি আপনি পুরো আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়েন তাহলে আপনি কিছুটা হলেও উপকৃত হবেন।

দাড়ি গজানোর উপায়

প্রাকৃতিক কিছু উপায় অবলম্বন করে আপনি আপনার মুখে দাড়ি গজাতে পারে। প্রাচীন কাল থেকে বর্তমান সময় পর্যন্ত বিভিন্ন ধরনের প্রাকৃতিক উপায় রয়েছে যেগুলো মেনে চলার মাধ্যমে মুখে দাড়ি গজানো শুরু হয়। আপনি হয়তোবা ফেসবুক বা ইউটিউবে দাড়ি গজানোর বিভিন্ন ধরনের ভিডিও দেখেছেন। আজকে আমরা আমাদের আর্টিকেলে দাড়ি গজানোর উপায় নিয়ে আলোচনা করব।
  • প্রাকৃতিক উপায় অবলম্বন করে দাঁড়িয়ে গজানোর জন্য পেঁয়াজের রস ব্যবহার করা সব থেকে ভালো একটি উপায়। পেঁয়াজের রস নতুন দাড়ি গজাতে এবং দাড়িকে ঘন এবং লম্বা করতে খুবই ভাল কাজ করে থাকে।
  • অনেকের মনে একটি ধারণা থাকে যে সব সময় সেভ করলে হয়তোবা দাড়ি গজায়। কিন্তু এই ধারণাটি একদমই ভুল। ঘন ঘন দাড়ি না কেটে কিছুদিন পর পর দাড়ি ছাটার চেষ্টা করুন।
  • তৈলাক্ত ত্বক দাড়ি না গজানোর একটি বড় কারণ। তাই সব সময় আপনার ত্বক পরিষ্কার রাখার চেষ্টা করুন। ত্বক পরিষ্কার রাখার জন্য হালকা গরম পানি দিয়ে দিনে কয়েকবার মুখ ধুয়ে ফেলুন। এতে যেমন নতুন দাড়ি গজাবে তেমনই দাড়ি ঘন এবং লম্বা হবে।
  • আপনার মুখে যদি কোঁকড়ানো দাড়ি থাকে তাহলে সেগুলোকে ছেঁটে ফেলুন। কারণ কোকড়ানো দাড়ি অন্য দাড়ি বৃদ্ধি থামিয়ে দিতে পারে।
  • আপনি দাড়ি গজানোর জন্য দিনে অন্তত দুইবার প্রায় দশ মিনিট করে হাতের তালু দিয়ে মুখে ম্যাসেজ করুন। কারণ ম্যাসেজ করার মাধ্যমে আপনার মুখের রক্ত চলাচল বৃদ্ধি পাবে এবং এটি দ্রুত দাড়ি গজাতে সহযোগিতা করবে।
  • নিয়মিত সুষম খাদ্য খাওয়ার চেষ্টা করুন। কারণ সুষম খাদ্য আপনার দাড়ি গজাতে এবং আপনার শরীরের সমস্ত জায়গাতে চুল গজাতে সহযোগিতা করে।
  • অনেকেই দেখা যায় যে রাত্রে অনেকক্ষণ পর্যন্ত জেগে থাকে। কিন্তু এই অভ্যাসটা সম্পূর্ণরূপে ত্যাগ করতে হবে। দাড়ি গজানোর জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুম অত্যন্ত প্রয়োজন। এজন্য বেশি রাত করে না জেগে সময় মতো ঘুমিয়ে পড়ুন।

দাড়ি ঘন করার ঘরোয়া উপায়

অনেকেই চায় যে তার দাড়ি গুলোকে ঘন করতে। কিন্তু সঠিক উপায় না জানার কারণে তারা তাদের দাড়িকে ঘন করতে পারে না। আজকে আমরা আপনাকে জানাবো যে কিভাবে আপনি আপনার দাড়িকে ঘন করতে পারেন।
  • আপনি আপনার মুখে ভিটামিন বি কমপ্লেক্স ব্যবহার করতে পারেন। কারণ ভিটামিন বি কমপ্লেক্স যেমন নতুন দাড়ি গজায় তেমনি দাড়িকে ঘন করে তোলে।
  • আপনি সপ্তাহে অন্তত একবার মুখে স্ক্রাব করতে পারেন। কারণ স্ক্রাব করার ফলে মুখে যে মৃত কোষগুলি থাকে সেগুলো নির্মূল হয়ে যায় এবং মুখের রক্ত চলাচল বৃদ্ধি পায় এবং এর ফলে যেমন নতুন দাড়ি গজায় তেমনি দাড়ি ঘন হয়ে ওঠে।
  • বিভিন্ন ধরনের ইউক্যালিপটাস জাতীয় মশ্চারাইজার ক্রিম রয়েছে। যেগুলো ব্যবহার করার মাধ্যমে আপনার দাড়ি হয়ে যাবে ঘন।
  • অ্যালোভেরার জেল স্কিনের জন্য অনেক ভালো। এই এলোভেরার জেল যেমন আপনার স্কিনকে সুরক্ষিত রাখে তেমনই আপনার মুখে নতুন দাড়ি গজাতে এবং দাড়িকে ঘন করতে সহযোগিতা করে।
  • আপনি চাইলে আমলকির তেল ব্যবহার করে দেখতে পারেন। আমলকির তেল যদি আপনি মুখে ব্যবহার করে সারারাত রেখে দেন তাহলে আপনার মুখের দাড়িগুলো ঘন হয়ে যাবে।
  • আপনি যদি আমলকির তেল ব্যবহার না করেন তাহলে আপনি এই আমলকি তেলের পরিবর্তে নারিকেল তেলও ব্যবহার করতে পারেন।
  • আপনার মুখে যদি ব্রণ থাকে তাহলে সেগুলো আপনার মুখের দাড়ি গজাতে বাধা সৃষ্টি করবে বা দাড়িকে ঘন করতে বাধা সৃষ্টি করবে। তাই আপনার মুখে যাতে ব্রণ না হয় সে বিষয়ে লক্ষ্য রাখতে হবে।
  • দাড়িকে ঘন করানোর জন্য সব সময় মুখ পরিষ্কার রাখতে হবে। কারণ মুখ অপরিষ্কার থাকার কারণে মুখে দাড়ি গজায় না বা দাড়ি ঘন হয় না।

দাড়ি গজানোর উপায় ঔষধ

বর্তমানে এখন বাজারে দাড়ি গজানোর বিভিন্ন ধরনের ঔষধ চলে এসেছে। যেগুলো ব্যবহার করার মাধ্যমে আপনি আপনার মুখে নতুন দাড়ি গজাতে পারেন এছাড়াও আপনার মুখে থাকা দাড়িগুলোকে ঘন এবং লম্বা করতে পারেন। চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক দাড়ি গজানোর ওষুধ গুলোর নাম কি। Minoxidil হচ্ছে এক ধরনের স্প্রে যা মুখের দাড়ি গজাতে সহযোগিতা করে। এছাড়াও এই স্প্রেগুলো টাক মাথায় চুল গজাতেও অনেক ভালো কাজ করে থাকে। আপনি যদি এই Minoxidil নিয়মিত ব্যবহার করেন তাহলে আপনার মুখে অনেক সুন্দর এবং ঘন দাড়ি গজাবে যা আপনি কখনো কল্পনাও করতে পারবেন না। 

এছাড়াও বর্তমানে এখন বাজারে বিভিন্ন ধরনের ব্রেড গ্রোথ অয়েল পাওয়া যায়। এই ব্রেড গ্রোথ অয়েল গুলো ব্যবহার করার মাধ্যমে আপনার মুখে নতুন দাড়ি গজাতে পারে এছাড়াও আপনার মুখে থাকা দাড়িগুলোকে করে ফেলতে পারে ঘন এবং লম্বা। এছাড়াও এই ব্রেড গ্রোথ অয়েল আপনার মুখে থাকা দাড়িগুলোকে মশ্চারাইজ করতে পারে। এজন্য আপনি চাইলে এগুলো ব্যবহার করতে পারেন। তবে আপনি সবসময় চেষ্টা করবেন যে একটি ভালো মানের ব্রেড গ্রোথ অয়েল ব্যবহার করার জন্য।

দাড়ি ঘন করার ক্রিম

মুখে দাড়ি গজানোর জন্য আপনি হয়তোবা ইতিমধ্যে বিভিন্ন ধরনের উপায় অবলম্বন করেছেন। এছাড়া বিভিন্ন ধরনের ক্রিম ব্যবহার করেছেন। কিন্তু এখনো আপনার মুখে দাড়ি ঘন হয় না। এই দাড়ি ঘন করার একটি ভালো মানের ক্রিমের নাম হচ্ছে Balay Beard Growth Essential Oil। এই ক্রিমটি ব্যবহার করার মাধ্যমে আপনি আপনার দাড়িকে ঘন করে তুলতে পারবেন। এছাড়াও এই ক্রিমটি মুখে নতুন দাড়ি গজাতে খুবই ভালো কাজ করে থাকে।

কোন খাবার খেলে দাড়ি লম্বা এবং ঘন হয়

দাড়ি গজানোর জন্য এবং তারিখে লম্বা এবং ঘন করার জন্য বিভিন্ন ধরনের খাবার রয়েছে। সেসব খাবার খাওয়ার মাধ্যমে আপনি আপনার দাড়িকে লম্বা এবং ঘন করতে পারেন। চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক সেই সকল খাবারের নাম।
  • পালংশাক হচ্ছে অন্যতম পুষ্টিকর একটি খাবার। এতে বিভিন্ন ধরনের ভিটামিন জাতীয় উপাদান রয়েছে। এ ছাড়া পালং শাক খাওয়ার মাধ্যমে ও দাড়ি লম্বা এবং ঘন হয়ে থাকে।
  • সামুদ্রিক টুনা মাছ বিভিন্ন ধরনের পুষ্টি গুণে ভর্তি থাকে। এই সামুদ্রিক টুনা মাছ খাওয়ার মাধ্যমে আপনি আপনার দাড়িকে করে তুলতে পারেন লম্বা এবং ঘন।
  • ডিম হচ্ছে অত্যন্ত প্রোটিন জাতীয় একটি খাবার। আপনি যদি আপনার নিয়মিত খাদ্য তালিকায় একটি করে ডিম রাখেন তাহলে এটি আপনার দাড়িকে করে ফেলতে পারে লম্বা এবং ঘন।
  • এছাড়া যেসব খাবারে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন রয়েছে এবং বিভিন্ন ধরনের ভিটামিন রয়েছে সেগুলো খাবার মাধ্যমেও আপনি আপনার দাড়িকে ঘন এবং লম্বা করে ফেলতে পারেন।
  • এছাড়াও নিয়মিত আপনি প্রচুর পরিমাণে পানি পান করার। কারণ নিয়মিত পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করার মাধ্যমে আপনার শরীর ডিহাইড্রেট হয় না। এবং এর ফলে আপনার দাড়িগুলো হয়ে উঠতে পারে লম্বা এবং ঘন।

শেষ কথা

আপনি ইতিমধ্যেই নিশ্চয়ই জেনে গেছেন যে কিভাবে চাপ দাড়ি গজায় এবং কিভাবে দাড়ি লম্বা এবং ঘন করা যায়। এছাড়াও দাড়ি লম্বা এবং ঘন করার ক্রিম বা ওষুধের নাম জেনেছেন। আপনি যদি উপরের দেওয়া নিয়ম মোতাবেক কাজ করেন তাহলে আপনি পেতে পারেন অনেক সুন্দর চাপ দাড়ি এবং লম্বা দাড়ি। আজকের এই আর্টিকেলটি যদি আপনার কাছে ভালো লেগে থাকে তাহলে আপনার বন্ধুদের কাছে করবেন। যাতে করে তারাও সেই সকল বিষয়ে সম্পর্কে জানতে পারে। ভালো থাকবেন এবং সুস্থ থাকবেন ধন্যবাদ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url