কিডনির পাথর দূর করার ঘরোয়া উপায়

বর্তমানে কিডনিতে পাথর এই সমস্যাটি সচরাচর প্রত্যেকটি মানুষের মধ্যে দেখা যায়। ছেলে বা মেয়ে উভয়ের ক্ষেত্রে এই কিডনিতে পাথর সমস্যাটি হয়ে থাকে। প্রথমে হয়তোবা আমরা এটিকে অবহেলা করলেও পরবর্তীতে পড়তে হয় অনেক বড় একটি সমস্যার মধ্যে। 
কিডনির পাথর দূর করার ঘরোয়া উপায়
তবে এমন কিছু ঘরোয়া উপায় রয়েছে যেগুলো মেনে চললে কিডনির পাথর ও সহজে দূর করা যায়। তাই আমরা আজকের এই আর্টিকেলে কিডনির পাথর দূর করার ঘরোয়া উপায় সম্পর্কে তাহলে সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন।

পোস্টের সূচিপত্রঃ কিডনির পাথর দূর করার ঘরোয়া উপায়

ভূমিকা

কিডনিতে পাথর এই সমস্যাটি বর্তমানে প্রত্যেকটি মানুষের মধ্যে দিন দিন বেড়েই চলেছে। অনেকেই মনে করেন যে কিডনিতে পাথর হয়েছে তার মানে হয়তোবা তাকে অপারেশন করতে হবে। তবে কিডনিতে পাথর মানে যে অপারেশন করতে হবে সেটি এমন নয়। আপনি চাইলে বেশ কিছু ঘরোয়া উপায় মেনে চলার মাধ্যমে কিডনিতে পাথর সমস্যাটি দূর করে ফেলতে পারবেন। 
আপনাকে ঘরোয়া পদ্ধতিতে কিডনির পাথর দূর করার জন্য প্রাথমিক কিছু পরীক্ষার মাধ্যমে কিডনির পাথরের আকার নির্ধারণ করে সে অনুযায়ী ঘরোয়া চিকিৎসা নিতে হবে। আর যদি আপনি সেই ঘরোয়া চিকিৎসা গুলো নিতে পারেন তাহলে খুব সহজে আপনার কিডনির পাথর দূর করে ফেলতে পারবেন। 

আজকের এই আর্টিকেলটি সম্পূর্ণরূপে পড়ার মাধ্যমে আশা করা যায় যে আপনি আপনার কিডনির পাথর সম্পূর্ণরূপে দূর করে ফেলতে পারবেন। তাই আপনি যদি আপনার কিডনির পাথর সমস্যাটি দূর করতে চান তাহলে আজকের এই সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়াটা আপনার জন্য খুবই জরুরী। তাহলে আর দেরি না করে শুরু করা যাক।

কিডনির পাথর কি

একটি মানুষের কিডনির ভেতরে যখন মিনারেল জমে ক্রিস্টাল বা স্ফটিকের মত পদার্থ তৈরি হয় তখন সে পদার্থটিকে কিডনির পাথর বলা হয়। অর্থাৎ যখন মানুষ শরীরে ক্যালসিয়াম ও অক্সালেটের ডিপজিশন হয় তখন এই কিডনিতে পাথর সমস্যাটি হয়ে থাকে। তাই কখনোই উচিত হবে না যদি কিডনিতে পাথর হয় তাহলে সেটিকে অবহেলা করা। 

কিডনিতে পাথর হলে ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে অথবা কিডনিতে পাথর দূর করার ঘরোয়া পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে। তা না হলে পরবর্তীতে পড়তে হতে পারে অনেক বড় একটি সমস্যার মধ্যে। তাহলে চলুন এখন জেনে নেওয়া যাক যে কিডনিতে পাথর হওয়ার কারণ কি।

কিডনিতে পাথর হয় কেন

একটি মানুষের শরীরের কিডনির ভেতরে যখন মিনারেল জমির ক্রিস্টাল বা স্ফটিকের মত পদার্থ তৈরি হয় তখন এই কিডনিতে পাথর হয়ে থাকে। অর্থাৎ মানব শরীরে ক্যালসিয়াম ও অক্সালেটের ডিপজিশন হওয়ার কারণে কিডনিতে পাথর হয়ে থাকে। মানব শরীরে কিডনিতে যে স্ফটিকের মত পদার্থ গুলি জমা হয় সেগুলো ধীরে ধীরে জমে কিডনিতে পরিণত হয়ে যায়। 

এই পাথরটি যখন অনেক বড় আকার ধারণ করে তখন সেটি ধীরে ধীরে মূত্রনালীর মধ্য দিয়ে এগিয়ে মূত্রনালীর ভেতরে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করে এবং এর ফলে প্রস্রাবের গতি ধীরে ধীরে কমে যায়। এবং এ কারণে প্রসব করার সময় প্রচুর পরিমাণে ব্যাথার উৎপত্তি হয়ে থাকে। 

মূলত শরীরে বিভিন্ন ধরনের কারণে কিডনিতে পাথর হয়ে থাকে। এরমধ্যে সবচেয়ে বেশি যে সমস্যাটির কারণে হয়ে থাকে সেটি হল শরীরে পানির অভাব এর কারণে। সাধারণত মানুষ হয়ে যখন মিনারেলস ইউরিনের উপাদানগুলো শুকিয়ে যেতে শুরু করে তখন এই ধরনের সমস্যা হয়ে থাকে।

কিডনিতে পাথর বলে বোঝার উপায়

বেশ কিছু লক্ষণ দেয়ার মাধ্যমে আপনি বুঝতে পারবেন যে আপনার কিডনিতে পাথর হয়েছে। তাহলে চলুন এখন জেনে নেওয়া যাক যে কোন কোন লক্ষণ দেখা দেওয়ার মাধ্যমে আপনি বুঝতে পারবেন যে আপনার কিডনিতে পাথর হয়েছে।
  • কিডনিতে পাথর হলে সব সময় বমি বমি ভাব হবে এবং অনেক সময় বমি হয়ে যাবে।
  • কিডনিতে পাথর হলে তলপেটে প্রচুর পরিমাণে ব্যথা হবে এবং কুঁচকিতে ব্যথা হবে।
  • কিডনিতে পাথর হলে পাঁজরের নিচে অসহ্যজনক ব্যথা হবে এবং এই ব্যথা প্রতিনিয়ত বাড়তে থাকবে এবং কমতে থাকবে।
  • আপনার যদি কিডনিতে পাথর হয় তাহলে প্রসব করতে গিয়ে প্রচুর পরিমাণে ব্যথা হবে।
  • কিডনিতে পাথর হলে প্রসবের রং কালচে লাল, লাল, কিংবা বাদামী রং ধারণ করবে।
  • আপনার কিডনিতে পাথর হলে একটু পর পর প্রস্রাব লাগবে।
  • আপনার কিডনিতে পাথর হলে আপনার প্রস্রাব থেকে দুর্গন্ধ বের হবে এবং ফেনা তৈরি হবে।

কিডনির পাথর দূর করার ঘরোয়া উপায়

আপনার যদি কিডনিতে পাথর হয়ে থাকে তাহলে আপনি বেশ কিছু ঘরোয়া উপায় মেনে চলার মাধ্যমে আপনার কিডনির পাথর চিরতরে দূর করে ফেলতে পারেন। কিন্তু অনেকেরই এই ঘরোয়া উপায় গুলো না জানার কারণে তারা এখনো এই কিডনিতে পাথর সমস্যায় ভুগছেন। অথবা যাদের অপারেশন করার মত সামর্থ্য থাকে না তারা এ ধরনের সমস্যায় আরো বেশি ভুগছে। তাই আজকে আমরা কিডনিতে পাথর দূর করার বেশ কিছু ঘরোয়া পদ্ধতি নিয়ে আলোচনা করব। তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক কিডনির পাথর দূর করার ঘরোয়া উপায় সম্পর্কে।
  • আপনার যদি কিডনিতে পাথর সমস্যাটি হয়ে থাকে তাহলে সব সময় প্রচুর পরিমাণে পানি পান করতে হবে। তবে পাথর যদি ছোট আকারের থাকে তাহলে আপনি এই পানি পান করার মাধ্যমে খুব সহজে কিডনির পাথরগুলো দূর করে ফেলতে পারবেন। অনেক চিকিৎসক কিডনির পাথর দূর করার জন্য পানি খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকে।
  • তুলসী পাতার রস খাওয়ার মাধ্যমেও আপনি খুব সহজেই কিডনির পাথরগুলো দূর করে ফেলতে পারবেন। কারণ তুলসী পাতাতে রয়েছে অ্যাসিটিক অ্যাসিড। আর এই এসিডিক অ্যাসিড কিডনিতে থাকা পাথরগুলোকে ভেঙে ফেলতে খুবই ভালো কাজ করে থাকে। তাই আপনার যদি কিডনিতে পাথর সমস্যা হয়ে থাকে তাহলে প্রতিদিন অন্তত দুইবার করে তুলসী পাতার রস খাবেন।
  • প্রতিনিয়ত লেবু খাওয়ার মাধ্যমে খুব সহজেই কিডনিতে পাথর দূর করে ফেলা যায়। কারণ লেবুর রসে রয়েছে সাইট্রিক অ্যাসিড আর এই সাইট্রিক অ্যাসিড কিডনির পাথর তৈরি করতে বাধা সৃষ্টি করে। এছাড়াও লেবুর রস কিডনির পাথর তৈরিতে বাধা সৃষ্টি করার পাশাপাশি কিডনির ছোট ছোট পাথরগুলোকে ভেঙ্গে সেগুলোকে বের করে দেয়। আপনি যদি প্রতিদিন সকালে হালকা গরম পানির সাথে লেবুর রস মিশিয়ে খেতে পারেন তাহলে আরও বেশি ভালো কাজ করবে।
  • ডালিম হচ্ছে এমন একটি খাবার যেটি খাওয়ার মাধ্যমে আপনি আপনার কিডনিকে রাখতে পারবেন সুরক্ষিত। নিয়মিত ডালিম খাওয়ার মাধ্যমে ডালিমে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট কিডনির পাথর এবং শরীরের অন্যান্য টক্সিন গুলোকে দূর করে ফেলতে সহযোগিতা করে।
  • আপেল সাইডার ভিনেগার খাবার ফলে কিডনিতে পাথর খুব সহজে দূর করা যায়। আপেল সাইডার ভিনেগার খাওয়ার জন্য আপেল সাইডার ভিনেগারের সাথে দুই টেবিল চামচ পরিমাণ পানি মিশিয়ে সেটি পান করতে হবে। তবে একটু হইসে মনে রাখতে হবে একদিনে সর্বোচ্চ ১৬ বারের বেশি এটি খাওয়া যাবে না। তবে আপনি যদি ডায়াবেটিসের রোগী হয়ে থাকেন বা ইনসুলিন নিয়ে থাকেন তাহলে এটি খাওয়া থেকে সবসময় বিরত থাকবেন।
  • কালোজিরা কিডনিতে পাথর দূর করতে খুবই ভালো কাজ করে থাকে। কারণ কালোজিরার বীজ খুব সহজে কিডনির পাথর দূর করে ফেলে। কালোজিরার মাধ্যমে কিডনির পাথর দূর করার জন্য একটি কাপে গরম পানি নিয়ে সেখানে আধা চা চামচ পরিমাণ শুকনো কালোজিরা মিশিয়ে দিনে দুইবার করে পান।
  • মেথির মাধ্যমে খুব সহজেই কিডনির পাথর দূর করে ফেলা যায়। মেথি দিয়ে কিনে পাথর দূর করার জন্য এক কাপ পরিমাণ ফুটানো পানিতে ১ থেকে ২ চা চামচ পরিমাণ শুকনো মেথি দিতে হবে এবং প্রতিদিন সেটি পান করতে হবে।

কিডনিতে পাথর হলে কি খেতে হয়

বেশ কিছু খাবার রয়েছে যেগুলো খাওয়ার মাধ্যমে আপনার কিডনি থাকবে সুরক্ষিত এবং আপনার কিডনিতে পাথর হবে না। তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক কিডনিতে পাথর হলে কি খেতে হবে।
  • সাইট্রাস জাতীয় খাবার খেতে হবে
  • ক্যালসিয়াম জাতীয় খাবার খেতে হবে
  • ভিটামিন ডি জাতীয় খাবার খেতে হবে
  • প্রচুর পরিমাণে পানি পান করতে হবে

আমাদের শেষ কথা

কিডনিতে পাথর হলে কি করতে হবে এবং কি কি ঘরোয়া উপায় মেনে চলার মাধ্যমে কিডনির পাথর দূর করা যায় সেইসব বিষয়ে উপরে খুবই ভালো ভাবে আলোচনা করা হয়েছে। তাই আপনার যদি কিডনিতে পাথর হয়ে থাকে তাহলে উপরের নিয়ম গুলো ঠিকঠাক মতো মেনে চলুন। আশা করা যায় যে উপরের নিয়ম গুলো মেনে চলার মাধ্যমে আপনার কিডনির পাথর দূর হয়ে যাবে। 

আজকের আর্টিকেলটা যদি আপনার কাছে ভালো লেগে থাকে তাহলে সেটা অন্যদের কাছে শেয়ার করুন যাতে তারাও কিডনির পাথর সমস্যা থেকে বাঁচতে পারে। ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন ধন্যবাদ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url