মোবাইলে ট্রেনের টিকিট কাটার নিয়ম

আপনি কি ঘরে বসে মোবাইলের মাধ্যমে ট্রেনের টিকিট কাটতে চাচ্ছেন? তাহলে আজকে আমরা মোবাইলে ট্রেনের টিকিট কাটার নিয়ম সম্পর্কে আপনাকে জানাবো। বর্তমানে অনলাইনের কারণে মোবাইলে মাধ্যমে ট্রেনের টিকিট কাটা অনেক সহজ হয়ে গিয়েছে। এখন ট্রেনের টিকিট কাটার জন্য আপনাকে আর লাইনে দাঁড়িয়ে সময় নষ্ট করতে হবে না। 
মোবাইলে ট্রেনের টিকিট কাটার নিয়ম
বর্তমানে দেখা যায় যে রাস্তায় প্রচুর জ্যাম থাকার কারণে স্টেশনে যেতে দেরি হয় বা স্টেশনে যাওয়ার পর দেখা যায় যে ট্রেনের টিকিট আর পাওয়া যায় না। তাই আজকে আমরা আপনাদের সুবিধার্থে মোবাইলে ট্রেনের টিকিট কাটার নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা দিব। আপনি যদি মোবাইলে ট্রেনের টিকিট কাটেন নিয়ম সম্পর্কে জানতে চান তাহলে পুরো আর্টিকেলটি ভালোভাবে পড়ুন।

পোস্টের সূচিপত্রঃ মোবাইলে ট্রেনের টিকিট কাটার নিয়ম

ভূমিকা

এখন ট্রেনের টিকিট কাটার জন্য আর টিকিট কাউন্টারে গিয়ে ঘন্টার পর ঘন্টা সময় নষ্ট করতে হয় না। আপনি চাইলে খুব সহজেই আপনার হাতে থাকা মোবাইল ফোনটি ব্যবহার করে অনলাইনের মাধ্যমে ট্রেনের টিকিট ক্রয় করতে পারেন। তবে অনেকেই সেই টিকিট কাটার নিয়মটা না জানার কারণে এখনো স্টেশনে গিয়ে নানা রকম ভোগান্তির মধ্যে পড়েন। মোবাইলের মাধ্যমে ট্রেনের টিকিট কাটা অনেক সহজ একটি উপায়। 
যার মাধ্যমে আপনি সহজেই যে কোন জায়গার টিকিট মোবাইলের মাধ্যমে ক্রয় করতে পারবেন। এবং এর জন্য আপনাকে কোন প্রকার ভোগান্তির মধ্যে পড়তে হবে না। তাহলে আর সময় নষ্ট না করে চলুন এখনই জেনে নেওয়া যাক মোবাইলে ট্রেনের টিকিট কাটার নিয়ম। যাতে করে আপনারাও মোবাইলের মাধ্যমে খুব সহজে ট্রেনের টিকিট কাটতে পারেন।

মোবাইলে ট্রেনের টিকিট কাটার অ্যাপস

মোবাইলে ট্রেনের টিকেট কাটার জন্য এক বাংলাদেশে একটি নতুন অ্যাপস চালু হয়েছে আর সেই অ্যাপস টির নাম হলো রেল সেবা। আপনি রেল সেবা অ্যাপসের মাধ্যমে খুব সহজেই মোবাইলে ট্রেনের টিকিট কাটতে পারবেন। আপনি এ রেল অ্যাপসটি আপনার মোবাইল ফোনের গুগল প্লে স্টোর থেকে পেয়ে যাবেন। আপনি আপনার মোবাইল ফোনের গুগল প্লে স্টোরে যাওয়ার পরে সেখানে সার্চ অপশনে রেল সেবা লিখে সার্চ দিলেই যে অ্যাপসটি আসবে সেই অ্যাপসটির মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই ঘরে বসে ট্রেনের টিকিট কাটতে পারবেন এবং সেই ট্রেনের টিকিটটি আপনার মোবাইল ফোনে ডাউনলোড করে রেখে দিতে পারবেন।

ট্রেনের টিকিট কাটার অ্যাপস এ রেজিষ্ট্রেশন

আপনি ইতিমধ্যে জেনেছেন যে কোন অ্যাপসের মাধ্যমে আপনি ঘরে বসে মোবাইলের মাধ্যমে ট্রেনের টিকিট কাটতে পারবেন। এখন আপনাকে জানতে হবে যে এই অ্যাপসটিতে আপনি কিভাবে আপনার একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করবেন। ট্রেনের টিকিট কাটার অ্যাপস এ রেজিস্ট্রেশন করার জন্য আপনাকে রেল সেবা অ্যাপসটির মধ্যে প্রবেশ করতে হবে এরপরে সেখান থেকে সাইন ইন অপশনে গিয়ে আপনার মোবাইল ফোন পাসওয়ার্ড এবং যাবতীয় যেসব তথ্য চাইবে সেসব তথ্য দিয়ে আপনাকে রেল সেবা অ্যাপ এ রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। 

এরপর থেকে আপনি যতবার টিকিট কাটার জন্য রেল সেবা অ্যাপ এ প্রবেশ করবেন ততবার আপনাকে সেই মোবাইল নাম্বার এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে রেল সেবা অ্যাপের মধ্যে প্রবেশ করে টিকিট কাটতে হবে। এক্ষেত্রে আপনাকে মোবাইল নম্বর এবং পাসওয়ার্ডটি সবসময় মনে রাখতে হবে। কারণ মোবাইল নম্বর অথবা পাসওয়ার্ড ভুল লিখলে আপনি রেল সেবা এর মাধ্যমে ট্রেনের টিকিট কাটতে পারবেন না।

মোবাইলে ট্রেনের টিকিট কাটার নিয়ম

এতক্ষণ তো জানলেন যে কোন অ্যাপস এর মাধ্যমে ট্রেনের টিকিট কাটা যায় এবং সেখানে কিভাবে রেজিস্ট্রেশন করা যায়। এখন আপনার মনে হয়তোবা একটি প্রশ্ন আসতে পারে যে তাহলে ট্রেনের টিকিট কিভাবে ক্রয় করবেন। এটি কোন চিন্তার বিষয় নয় এখন আমরা ট্রেনের টিকিট কাটার নিয়ম সম্পর্কেও আপনাকে শিখিয়ে দেবো। 

মোবাইলে ট্রেনের টিকিট কাটার জন্য আপনাকে রেল সেবা অ্যাপের মধ্যে প্রবেশ করে সেখান থেকে From অপশনে আপনি যে স্টেশন থেকে উঠবেন সেই স্টেশনটির নাম উল্লেখ করবেন এবং To অপশনে আপনি যে স্টেশনে যাবেন সেই স্টেশনের নাম উল্লেখ করবেন। এরপরে আপনি কোন তারিখে যেতে চান সেই তারিখটি সিলেক্ট করবেন এবং এরপরে আপনি ট্রেনের কোন ধরনের সিটে যেতে চান যেমনঃ নরমাল, এসি, এসি কেবিন ইত্যাদি যেকোনো একটি সিলেক্ট করুন। 

এরপর সার্চ অপশনে ক্লিক করে সার্চ দিন। সার্চ করার পরে আপনার সামনে একটি ট্রেনের লিস্ট দেওয়া হবে। এরপর আপনি যে ট্রেনটিতে ভ্রমণ করতে চান সেই ট্রেনটি সিলেক্ট করুন। ট্রেন সিলেট করার পরে আপনার সামনে সিট সিলেকশনের একটা অপশন আসবে। সেখান থেকে আপনি যে সিটটিতে বসতে চান সেই সিটটি সিলেক্ট করুন। 

এরপর পারচেজ অপশন এ ক্লিক করার পরে আপনি যে পেমেন্ট মেথড এ পেমেন্ট করতে চান সেটি সিলেক্ট করুন এবং আপনার সেই পেমেন্ট মেথডের মোবাইল নম্বর পাসওয়ার্ড দিয়ে পেমেন্ট করার মাধ্যমে ট্রেনের টিকিট ক্রয় করে নিন।

বিকাশে ট্রেনের টিকেট কাটার নিয়ম

আপনি যদি বিকাশ অ্যাপের মাধ্যমে ট্রেনের টিকিট কাটতে চান তাহলে প্রথমে আপনাকে বিকাশ অ্যাপ এ লগইন করতে হবে। এরপর মেইন মেনু অপশন থেকে রেল সেবা নামে একটি অপশন আছে সেটি সিলেক্ট করতে হবে। এরপর সেখানে আপনার রেল সেবা অ্যাপস এর বা ওয়েবসাইটের মোবাইল নম্বর এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করে নিন। এরপর আপনার যাত্রার স্থান এবং আপনার গন্তব্যস্থান সিলেট করুন এবং তারিখ নির্বাচন করুন। 

তারপর সার্চ দিয়ে আপনার কাঙ্খিত ট্রেনটি সিলেক্ট করে সেখান থেকে সিট সিলেক্ট করুন। এরপর পারচেজ অপশনে ক্লিক করার পরে সেখান থেকে বিকাশ পেমেন্ট গেটওয়ে আসবে। এরপর সেখানে আপনার বিকাশ নম্বর দিলে আপনার মোবাইলে একটি কোড নম্বর আসবে। সেই কোড নম্বর বসানোর পরে আপনার বিকাশের পিন নম্বর দিলে আপনি টিকিট ক্রয় করতে পারবেন এবং সে টিকিট মোবাইলে ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

মোবাইলের ট্রেনের টিকিট কাটার চার্জ ফি কত

মোবাইলের মাধ্যমে ট্রেনের টিকিট কাটার জন্য আপনাকে ২০ টাকা এক্সট্রা চার্জ দিতে হবে। তবে আমার মনে হয় যে এই ২০ টাকা এক্সট্রা চার্জ আপনার স্টেশনে গিয়ে টিকিট কাটা এবং আপনার শ্রমের কাছে খুবই স্বল্প পরিমাণ। এই ২০ টাকা এক্সট্রা চার্জ ব্যতীত মোবাইলের মাধ্যমে ট্রেনের টিকিট কাটার জন্য আপনাকে আর অন্য কোন এক্সট্রা চার্জ দিতে হবে না।

শেষ কথা

আপনি কি মধ্যে জেনেছেন যে কোথায় থেকে মোবাইলে ট্রেনের টিকিট কাটতে হয় এবং কিভাবে মোবাইলে ট্রেনের টিকিট কাটতে হয়। এখন লাইনে দাঁড়িয়ে ট্রেনের টিকিট কাটার ঝামেলার দিন শেষ হয়ে গেছে। তাই আপনি চাইলে উপরের নিয়ম গুলো ফলো করে নিজে নিজে ঘরে বসে মোবাইলের মাধ্যমে ট্রেনের টিকিট কাটতে পারেন। এবং এর জন্য আপনাকে কোন প্রকার ঝামেলায় জড়াতে হবে না। 

আজকের এই আর্টিকেলটি যদি আপনার কাছে ভালো লেগে থাকে তাহলে অন্যদের কাছে শেয়ার করবেন। যাতে করে তারাও মোবাইলের মাধ্যমে খুব সহজে ট্রেনের টিকিট ক্রয় করতে পারে। আর যারা ভ্রমন পিপাসু মানুষ এবং ট্রেনে ভ্রমণ করতে খুবই পছন্দ করেন তাদের জন্য এই মোবাইলে ট্রেনের টিকিট কাটার নিয়মটি খুবই জরুরী। ভালো থাকবেন এবং সুস্থ থাকবেন ধন্যবাদ। আপনার যাত্রা শুভ হোক।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url