ট্রেনের অনলাইন টিকিট ফেরত দেওয়ার নিয়ম ২০২৩ (নতুন নিয়ম)

বর্তমানে আমরা এখন অনেকেই ট্রেনে যাত্রা করার জন্য অনলাইনের মাধ্যমে ট্রেনের টিকিট কেটে থাকি। কিন্তু অনেক সময় বিভিন্ন ধরনের কারণের জন্য আমাদেরকে সেই টিকিটগুলো ফেরত দেওয়ার প্রয়োজন হয়। কিন্তু ট্রেনের অনলাইন টিকিট ফেরত দেওয়ার নিয়ম না জানার কারণে আমরা এখন অনেকেই নানা ধরনের ভোগান্তির মধ্যে পড়ে যায়। 
ট্রেনের অনলাইন টিকিট ফেরত দেওয়ার নিয়ম
তাই আমাদেরকে আগে জানতে হবে ট্রেনের অনলাইন টিকিট ফেরত দেওয়ার নিয়ম সম্পর্কে। আপনি যদি আজকের এই আর্টিকেলটি সম্পূর্ণরূপে ভালোভাবে পড়েন তাহলে ট্রেনের অনলাইন টিকিট ফেরত দেওয়ার নিয়ম সম্পর্কে ভালোভাবে এবং বিস্তারিত জানতে পারবেন। তাহলে আর দেরি না করে চলুন এখনই জেনে নেওয়া যাক ট্রেনের অনলাইন টিকিট ফেরত দেওয়ার নিয়ম সম্পর্কে।

পোষ্টের সূচিপত্রঃ ট্রেনের অনলাইন টিকিট ফেরত দেওয়ার নিয়ম ২০২৩

ভূমিকা

বর্তমান বাংলাদেশে যে কোন জায়গায় যাত্রার জন্য সবচেয়ে বড় একটি মাধ্যম হচ্ছে রেলপথ। এছাড়াও বর্তমানে এখন আর এই ট্রেনের টিকিট কাটার জন্য রেলওয়ে স্টেশনে গিয়ে অনেক বড় বড় লাইনে দাঁড়িয়ে ট্রেনের টিকিট কাটতে হয় না। খুব সহজেই এখন ঘরে বসে নিজের হাতে থাকা মোবাইল ফোনটি দিয়ে মিনিটের মধ্যে কেটে ফেলা যায় অনলাইনে একটি ট্রেনের টিকিট। 

কিন্তু অনেক সময় এমনটি হয়ে থাকে যে আপনার যাত্রার ডেট টি পেছানোর জন্য আপনাকে টিকিটটি বাতিল করতে হয়। কিন্তু ট্রেনের অনলাইন টিকিট ফেরত দেওয়ার নিয়ম না জানার কারণে ট্রেনের অনলাইন টিকিট ফেরত দেওয়া অনেকটাই জটিল হয়ে পড়ে। তাই আমরা আজকে আপনাদেরকে জানাবো যে ট্রেনের অনলাইন টিকিট ফেরত দেওয়ার নিয়ম সম্পর্কে। 
আপনি যদি ট্রেনের অনলাইন টিকিট ফেরত দেওয়ার নিয়ম এই আর্টিকেলটি সম্পূর্ণটি পড়েন তাহলে খুব সহজেই জানতে পারবেন ট্রেনের অনলাইন টিকিট ফেরত দেওয়ার নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত। আমরা এখন যে বিষয়টি নিয়ে জানবো সেটি হল বাংলাদেশ ট্রেনের টিকিট বাতিল করার নিয়ম সম্পর্কে।

বাংলাদেশ ট্রেনের টিকিট বাতিল করার নিয়ম 

ট্রেনের অনলাইন টিকিট ফেরত দেওয়ার নিয়মঃ যেকোনো কোথাও যাত্রা করার জন্য সবচেয়ে আরামদায়ক একটি উপায় হচ্ছে ট্রেনের মাধ্যমে যাত্রা করা। এ ট্রেনের যাত্রা যেমন অনেক বেশি আনন্দদায়ক তেমনি অনেক সহজ একটি যোগাযোগের মাধ্যম। কিন্তু অনলাইনে ট্রেনের টিকিট কাটার পরে ট্রেনের অনলাইন টিকিট ফেরত দেওয়ার নিয়ম সম্পর্কে না জানার কারণে ট্রেনের টিকিট অনেকেই ফেরত দিতে পারে না। 

কিন্তু এ বিষয়টি নিয়ে আর চিন্তা করতে হবে না চলুন এখনই আমরা আপনাকে জানাবো যে বাংলাদেশ ট্রেনের টিকিট বাতিল করার নিয়ম সম্পর্কে। আপনি যদি অনলাইনের মাধ্যমে ট্রেনের টিকিট কেটে থাকেন তাহলে অনলাইনের মাধ্যমে সে টিকেটটি খুব সহজে ফেরত দিয়ে দিতে পারবেন। বাংলাদেশ ট্রেনের টিকিট বাতিল করার নিয়ম জানলে আপনি জানতে পারবেন আপনি আপনার মোবাইল ফোনটি দিয়ে সহজেই অনলাইন এর মাধ্যমে ট্রেনের টিকিট ফেরত দেওয়া যায়। 
এছাড়াও বাংলাদেশ ট্রেনের টিকিট বাতিল করার নিয়ম সম্পর্কে জানার পরে আপনিও ঘরে বসে আপনার হাতে থাকা মোবাইল ফোনটির মাধ্যমে খুব সহজেই একটি ট্রেনের টিকিট ফেরত দিয়ে দিতে পারবেন। এছাড়াও বাংলাদেশ ট্রেনের টিকিট বাতিল করার নিয়ম সম্পর্কে জানার পরে আপনি বাংলাদেশ ট্রেনের টিকিট বাতিল করার আরো বিভিন্ন পদ্ধতি সম্পর্কে জানতে পারবেন। এজন্য আপনারা অবশ্যই জানতে হবে বাংলাদেশ ট্রেনের টিকিট বাতিল করার নিয়ম সম্পর্কে। তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক ট্রেনের অনলাইন টিকিট ফেরত দেওয়ার নিয়ম সম্পর্কে।

ট্রেনের অনলাইন টিকিট ফেরত দেওয়ার নিয়ম

ট্রেনের অনলাইন টিকিট ফেরত দেওয়ার নিয়ম বাংলাদেশে বিভিন্ন ধরনের রয়েছে। চলুন তাহলে ট্রেনের অনলাইন টিকিট ফেরত দেওয়ার নিয়ম সম্পর্কে জেনে নিই। আপনি যদি আপনার অনলাইনের ট্রেনের টিকিটটি ফেরত দিতে চান তাহলে আপনি যে একাউন্টটি দিয়ে টিকিট কেটেছেন আপনাকে সেই অ্যাকাউন্টের মধ্যে প্রবেশ করতে হবে। ট্রেনের অনলাইন টিকিট ফেরত দেওয়ার নিয়ম। 

আপনি সেই একাউন্টে প্রবেশ করার পরে সেখান থেকে আপনি যেখানে আপনার টিকিটের হিস্টরি দেখতে পাবেন অর্থাৎ টিকিট কাটার পরে আপনি যেখান থেকে টিকিট ডাউনলোড দিতে পারবেন সেখানে প্রবেশ করবেন। সে জায়গায় প্রবেশ করার পরে আপনি যে টিকিটটি ক্যানসেল করবেন বা বাতিল করবেন ফেরত দিবেন সে টিকিটটি খুঁজে বের করুন। এরপর সেখানে আপনি দুটি অপশন দেখতে পাবেন একটি হল ডাউনলোড টিকিট এবং আরেকটি অপশন থাকবে সেটা হল ক্যানসেল টিকিট। 

আপনি সেই ক্যানসেল টিকিট অপশনটিতে ক্লিক করার পরে আপনাকে দেখানো হবে আপনি কত টাকা ফেরত পাবেন এরপর সেখান থেকে নেক্সটে ক্লিক করার পরে আপনার মোবাইলে একটি ওটিপি কোড আসবে। সেই কোডটি আপনি সেখানে বসানোর মাধ্যমে আপনার ট্রেনের টিকিট খুব সহজেই ফেরত দিতে পারবেন। তাহলে আপনি এখন নিশ্চয়ই বুঝে গেছেন ট্রেনের অনলাইন টিকিট ফেরত দেওয়ার নিয়ম সম্পর্কে। 

চলুন আরো জেনে নেওয়া যাক ট্রেনের অনলাইন টিকিট ফেরত দেওয়ার নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত। এখন অনেকের মনে হয় তোকে একটা প্রশ্ন আসতে পারে যে ট্রেনের টিকিট ফেরত দেওয়ার পরে ট্রেনের টিকিট বাতিলের চার্জ কত। অর্থাৎ আপনি যে ট্রেনের টিকিটটি ফেরত দিবেন এক্ষেত্রে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ আপনার কাছে থেকে কত টাকা কেটে রাখবে। চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক ট্রেনের টিকিট বাতিলের চার্জ সম্পর্কে।

ট্রেনের টিকিট বাতিলের চার্জ

চীনের অনলাইন টিকিট ফেরত দেওয়ার নিয়ম সম্পর্কে জানার পরে আপনাকে এখন জানতে হবে ট্রেনের টিকিট বাতিলের চার্জ কত। চলুন তাহলে এখনই জেনে নেওয়া যাক ট্রেনের টিকিট বাতিলের চার্জ কত সে সম্পর্কে। ট্রেনের টিকিট বাতিলের চার্জঃ আপনি যদি আপনার যাত্রার ৪৮ ঘণ্টা আগে আপনার ট্রেনের টিকিট টি অনলাইনের মাধ্যমে ফেরত দেন তাহলে এসি ক্লাসের সিটের জন্য আপনার থেকে 40 টাকা চার্জ কেটে নেওয়া হবে।

আর আপনি যদি প্রথম শ্রেণীর কোন টিকিট কেটে থাকেন তাহলে সেই ট্রেনের টিকিট বাতিলের চার্জ হবে ৩০ টাকা এছাড়াও আপনি যদি অন্য কোন শ্রেণীর টিকিট কেটে থাকেন তাহলে সেক্ষেত্রে ট্রেনের টিকিট বাতিলের চার্জ হবে ২৫ টাকা। আর আপনি যদি আপনার ট্রেনের টিকিটটি যাত্রা শুরুর 24 ঘন্টা আগে বাতিল করেন বা ফেরত দেন তাহলে ট্রেনের টিকিট বাতিলের চার্জ হবে আপনার টিকিট মূল্যের 25% এবং আপনি যদি আপনার যাত্রার 12 ঘন্টা আগে আপনার ট্রেনের টিকিটটি বাতিল করতে চান তাহলে ট্রেনের টিকিট বাতিলের চার্জ হবে আপনার টিকিট মূল্যের ৫০%। 

আর আপনি যদি আপনার সেই টিকিট টি যাত্রা শুরু হওয়ার 6 ঘন্টা আগে বাতিল করতে চান তাহলে সে ক্ষেত্রে ট্রেনের টিকিট বাতিলের চার্জ হবে আপনার টিকিট মূল্যের ৭৫% তবে একটি বিষয় মনে রাখতে হবে আপনি যদি আপনার ট্রেন যাত্রার 6 ঘন্টা আগে ফেরত না দেন তাহলে সে ক্ষেত্রে আপনি ট্রেনের টিকিট বাতিলের চার্জ অর্থাৎ কোন টাকায় ফেরত পাবেন না অর্থাৎ ট্রেনের টিকিট বাতিলের চার্জ হিসেবে সম্পূর্ণ টাকাটি কেটে নেওয়া হবে।

ট্রেনের টিকিট ফেরত দিলে কত টাকা পাওয়া যাবে

ট্রেনের অনলাইন টিকিট ফেরত দেওয়ার নিয়ম সম্পর্কে জানার পরে অনেকেই একটি প্রশ্ন করে থাকে যে ট্রেনের টিকিট কাটার পরে সেটি যদি ফেরত দেওয়া হয় তাহলে ট্রেনের টিকিট ফেরত দিলে কত টাকা পাওয়া যাবে। চলুন তাহলে এখন জেনে নেওয়া যাক ট্রেনের টিকিট ফেরত দিলে কত টাকা পাওয়া যাবে। ট্রেনের অনলাইন টিকিট ফেরত দেওয়ার নিয়ম। মনে করেন আপনি ৫০০ টাকা মূল্যের একটি টিকিট কেটেছেন এবং আপনার যাত্রার ৪৮ ঘণ্টা আগে সে টিকিটটি আপনি ফেরত দিবেন আর সে টিকিটটা যদি এসি ক্লাসের হয়ে থাকে তাহলে আপনাকে ফেরত দেওয়া হবে 460 টাকা অর্থাৎ 40 টাকা আপনার থেকে কেটে নেওয়া হবে। 

আর আপনি যদি প্রথম শ্রেণীর কোন টিকিট কাটেন তাহলে আপনাকে দেওয়া হবে ৪৭০ টাকা অর্থাৎ আপনার থেকে ৩০ টাকা কেটে নেওয়া হবে আর আপনি যদি অন্য কোন শ্রেণীর টিকিট কাটেন তাহলে আপনাকে দেয়া হবে 475 টাকা অর্থাৎ আপনার থেকে 25 টাকা কেটে নেওয়া হবে। আবার অনেকের মনে একটি প্রশ্ন আসে যে ২৪ ঘন্টা আগে ট্রেনের টিকিট ফেরত দিলে কত টাকা পাওয়া যাবে। আপনি 500 টাকার মূল্যের ট্রেনের টিকিট কাটার পরে সেটি যদি ২৪ ঘন্টা আগে ফেরত দেন তাহলে আপনাকে দেওয়া হবে ৩৭৫ টাকা অর্থাৎ আপনার থেকে ২৫% টাকা কেটে নেওয়া হবে। 

ট্রেনের টিকিট ফেলে দিল কত টাকা পাওয়া যাবে। আপনি যদি আপনার যাত্রা শুরুর ১২ ঘন্টা আগে আপনার ট্রেনের টিকিট ফেরত দেন তাহলে আপনাকে দেওয়া হবে ২৫০ টাকা অর্থাৎ আপনার থেকে ৫০% টাকা কেটে নেওয়া হবে আর আপনি যদি যাত্রা শুরুর 6 ঘন্টা আগের টিকিটটি ফেরত দেন তাহলে আপনাকে দেওয়া হবে ১২৫ টাকা অর্থাৎ আপনার থেকে ৭৫% টাকা কেটে নেওয়া হবে আর আপনি যদি যাত্রা শুরুর ৬ ঘন্টা আগে ফেরত দিতে না পারেন তাহলে সে ক্ষেত্রে আপনাকে কোন টাকায় দেওয়া হবে না। সুতরাং আশা করি আপনি এখন বুঝতে পেরেছেন ট্রেনের টিকিট ফেরত দিলে কত টাকা পাওয়া যাবে।

রেলওয়ে টিকিট রিটার্ন পলিসি ইন বাংলাদেশ

আপনি যদি সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি ভালোভাবে পড়েন তাহলে খুব ভালোভাবে জানতে পারবেন যে ট্রেনের অনলাইন টিকিট ফেরত দেওয়ার নিয়ম সম্পর্কে এবং আরো জানতে পারবেন রেলওয়ে টিকিট রিটার্ন পলিসি ইন বাংলাদেশ এ বিষয়টি সম্পর্কে। উপরে রেলওয়ে টিকিট রিটার্ন পলিসি ইন বাংলাদেশ এ বিষয়ে বিভিন্ন ধরনের বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। 

আপনি যদি সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি অর্থাৎ ট্রেনের অনলাইন টিকিট ফেরত দেওয়ার নিয়ম সম্পর্কে পড়েন তাহলে রেলও টিকিট রিটার্ন পলিস ইন বাংলাদেশ এ বিষয়টি সম্পর্কে খুবই ভালোভাবে বুঝতে পারবেন। আপনি যদি সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি ভালো হয়ে পড়েন তাহলে আশা করা যায় রেলওয়ে টিকিট রিটার্ন পলিসি ইন বাংলাদেশ এ সম্পর্কে আপনি ভালো হবে জানতে পেরেছেন।

শেষ কথাঃ ট্রেনের অনলাইন টিকিট ফেরত দেওয়ার নিয়ম

সুপ্রিয় পাঠক আপনি যদি সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি ভালোভাবে পড়েন তাহলে নিশ্চয়ই ভালোভাবে জানতে পেরেছেন ট্রেনের অনলাইন টিকিট ফেরত দেওয়ার নিয়ম সম্পর্কে এছাড়াও আরো জানতে পেরেছেন বাংলাদেশ ট্রেনের টিকিট বাতিল করার নিয়ম সম্পর্কে এবং ট্রেনের টিকিট বাতিলের চার্জ কত ও ট্রেনের টিকিট ফেরত দিলে কত টাকা পাওয়া যাবে এবং রেলওয়ে টিকিট রিটার্ন পলিসি ইন বাংলাদেশ এসব বিষয় সম্পর্কে বিস্তারিত। 

আপনি যদি সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি ভালোভাবে পড়ে থাকেন তাহলে আশা করা যায় আপনিও খুব সহজেই ঘরে বসে আপনার হাতে থাকা মোবাইল ফোনটির মাধ্যমে আপনার অনলাইনে ট্রেনের টিকিটটি ফেরত দিতে পারবেন। আজকের আর্টিকেলটি যদি আপনার কাছে ভালো লেগে থাকে তাহলে সেটি অন্যদের কাছে শেয়ার করার মাধ্যমে অন্যদেরকে জানার সুযোগ করে দিন যে কিভাবে অনলাইনের মাধ্যমে ট্রেনের টিকিট ফেরত দিতে হয়। 

এছাড়াও নতুন নতুন বিষয় সম্পর্কে জানার জন্য আমাদের এই ওয়েবসাইটটি নিয়মিত ভিজিট করতে থাকুন। এত করে আপনি নতুন নতুন বিভিন্ন ধরনের বিষয় সম্পর্কে জানতে পারবেন। ভালো থাকবেন এবং সুস্থ থাকবেন ধন্যবাদ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url